কিভাবে বেটভিসা এফিলিয়েট প্রোগ্রাম এ যোগদান করবেন?

Home » কিভাবে বেটভিসা এফিলিয়েট প্রোগ্রাম এ যোগদান করবেন?

বেটভিসা বাংলাদেশ হচ্ছে এমন একটি বেটিং প্ল্যাটফর্ম যারা তাদের সাইটে বেটিং করার পাশাপাশি বেটভিসা এফিলিয়েট প্রোগ্রাম এ যোগ দিয়ে এফিলিয়েট কমিশন আয় করার সুযোগ দিয়ে থাকে। বেটিং সম্পর্কে আমাদের মাঝে অনেক ভ্রান্ত ধারণা রয়েছে। অনেকে অনলাইনে বিভিন্ন জুয়ার সাইটে তাদের অর্থ হারিয়ে, বেটিং সম্পর্কে বাজে অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করেছে তাদের মনে।

তবে বিশ্বস্ত সাইটে বেটিং করে আপনি কখনোই আপনার অর্থ হারাবেন না। এমন একটি বিশ্বস্ত সাইট অফার করছে বেটভিসা। তবে ইতিপূর্বে বেটভিসা বাংলাদেশ বেটিং সম্পর্কে অনেক কিছুই জেনেছেন।

আজকের পর্বে বেটভিসা সাইটে কোনো ডিপোজিট ছাড়া কিভাবে আয় করবেন সে বিষয়ে আলোচনা করবো।

কোনো ডিপোজিট ছাড়াই এফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করার সুযোগ দিচ্ছে বেটভিসা বাংলাদেশ।

কিভাবে বেটভিসা এফিলিয়েট প্রোগ্রামে যোগদান করবেন সেটা নিয়ে থাকছে বিস্তারিত।

বেটভিসা এফিলিয়েট প্রোগ্রাম সম্পর্কে

বেটভিসা এফিলিয়েট প্রোগ্রাম হচ্ছে বেটভিসা বাংলাদেশ সাইটে নতুন গ্রাহকদের রেফার লিংক দ্বারা যুক্ত করানোর মাধ্যমে আয় করার সুযোগ। অর্থাৎ এটিকে এফিলিয়েট মার্কেটিং বলা যেতে পারে।

আপনি যদি এই সাইটে একজন এফিলিয়েটর হিসেবে যুক্ত হোন তবে আপনি একজন গ্রাহক প্রতি ৫০% এফিলিয়েট কমিশন আয় করতে পারবেন।

অর্থাৎ আপনার রেফার করা গ্রাহক যত টাকা আয় করবে তার ৫০% এফিলিয়েট কমিশন হিসেবে আপনার ব্যালান্স যোগ হবে।

এফিলিয়েট প্রোগ্রামে যুক্ত হওয়ার জন্য আপনাকে তাদের কাছে একটি আবেদন করতে হবে।

অতপর আপনার আবেদন অনুমোদিত হলে আপনি আপনার কাজ শুরু করতে পারবেন।

এখানে কমিশন আয় করার কোনো লিমিট নেই। যত বেশি সক্রিয় গ্রাহক আপনি রেফার করবেন ততবেশি আয় করতে পারবেন।

ডিপোজিট ছাড়া বাড়তি টাকা আয় করার দুর্দান্ত একটি প্রক্রিয়া এটি।

বেটভিসা এফিলিয়েট প্রোগ্রাম এর জন্য কীভাবে আবেদন করবেন?

বেটভিসা এফিলিয়েট প্রোগ্রাম এ যুক্ত হওয়া একটি সহজ প্রক্রিয়া। কয়েকটি ধাপ অনুসরণ করার মাধ্যমে আপনিও সহজে তাদের এফিলিয়েট প্রোগ্রামে যুক্ত হতে পারবেন। এটি কোনো জটিল প্রক্রিয়া নয়।

১. বেটভিসা বাংলাদেশের অফিসিয়াল সাইটে প্রবেশ করুন।

২. হোমপেজের নিচের দিকে স্ক্রল করুন, এখানে আপনি “এফিলিয়েট প্রোগ্রাম” নামে একটি অপশন পাবেন সেটিতে ক্লিক করুন।

৩. এই পর্যায়ে আপনি “Become an affiliate” নামক একটি হলুদ বাটন দেখতে পাবেন। এটিতে ক্লিক করে এগিয়ে যান পরের স্টেপে।

৪. এই পর্যায়ে আপনাকে লাইভ চ্যাটের একটি পেজে রিডাইরেক্ট করা হবে।

এখানে আপনি বেটভিসা সাইটের একজন এজেন্টের সাথে কথা বলুন এবং প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টগুলো সরবরাহ করুন।

৫. তাদের সাপোর্ট এজেন্টকে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট গুলো দেওয়ার পর, তারা আপনার মেম্বারশিপ অনুরোধ পর্যালোচনা করবে এবং পরবর্তীতে আপনাকে আবেদন গ্রহণ করেছেন কিনা সেটা জানাবেন।

এই পর্যায়ে আপনাকে কিছুক্ষণ সময় অপেক্ষা করতে হবে আপনার অনুরোধ অনুমোদন পাওয়ার জন্য।

তবে বাংলাদেশ থেকে যেকেউ চাইলে তাদের affiliate.bdt@betsvisa.com এড্রেসে মেইল করে যোগাযোগ করতে পারবেন।

এফিলিয়েট কমিশন কালেক্ট করার উপায়

বেটভিসা এফিলিয়েট প্রোগ্রাম এ যুক্ত হওয়ার আবেদন গ্রহণ করার পর এবার আপনি প্রস্তুত এফিলিয়েট কমিশন আয় করার জন্য।

তবে কিভাবে আপনি এফিলিয়েট কমিশন আয় করেবন সেটি নিচে স্টেপ বাই স্টেপ দেওয়া হলো।

১. প্রথমত বেটভিসা সাইটের এফিলিয়েট প্রোগ্রামে আবেদন করার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করুন।

২. এই পর্যায়ে আপনাকে একটি এফিলিয়েট লিংক প্রদান করা হবে যেটি দ্বারা আপনি মার্কেটিং করতে পারবেন।

৩. এফিলিয়েট লিংক নেওয়ার পর এবার উক্ত লিংকে ক্লিক করে যখনই কেউ বেটবিসা সাইটে একাউন্ট করবে তখন আপনার রেফার সম্পন্ন হবে।

এবার আপনার রেফার করা সদস্য যা আয় করবে এর ৫০% টাকা আপনি কমিশন হিসেবে পাবেন।

এফিলিয়েট কমিশন এর টাকা আপনার ব্যালেন্সে প্রতি মাসে যুক্ত হবে।

এফিলিয়েট পার্টনার হওয়ার সুবিধা

বেটভিসা বাংলাদেশ সাইটে আপনি যদি এফিলিয়েট পার্টনার হয়ে আয় করতে চান তবে আপনি অনেক ধরনের সুবিধা এখানে পেতে যাচ্ছেন।

নিচে কি কি সুবিধা এফিলিয়েটর হিসেবে আপনি পাবেন সেগুলো উল্লেখ করা হলো।

১. বৈচিত্র্য পণ্যের সমাহার: বেটভিসা সাইটে আপনি পণ্য বা সার্ভিসের বৈচিত্র্য সমাহার দেখতে পাবেন।

তাদের বিভিন্ন ক্যাটাগরির সার্ভিস গ্রহণের সাথে বৈচিত্র্য পণ্যের সুবিধা পাবেন।

২. বিশ্বস্ততা এবং নিরাপত্তা: বেটভিসা সাইটে এফিলিয়েট প্রোগ্রামে যুক্ত হলে আপনি পাবেন শতভাগ নিরাপত্তা।

অর্থাৎ এখানে যেকোনো আর্থিক বা অনার্থিক লেনদেনের ক্ষেত্রে বিশ্বাস এবং নিরাপত্তা গ্যারান্টি দিয়ে থাকে বেটভিসা।

৩. মাল্টি-টায়ার কমিশন স্কিম: বেটভিসা তাদের গ্রাহকদের জন্য বিভিন্ন মাল্টি-টায়ার কমিশন স্কিম ব্যাবস্থা করে থাকে।

বিভিন্ন ইভেন্টে অংশ নিয়ে আপনি বাড়তি অর্থ আয় করার সুযোগ এখানে পাবেন।

৪. গোপন চার্জ বা ফি: অনেক সাইটে বিভিন্ন হিডেন চার্জ বা ফি কেটে নেওয়া হয় পেমেন্ট উইথড্র করার সময়।

এসব চার্জ বা ফি এর বিষয়ে কোনো চুক্তিতে লেখা থাকে না। তবে বেটভিসা তে এমন কোনো গোপন চার্জ কেটে নেওয়া হবে না।

৫. সর্বদা কাস্টমার সাপোর্ট: এফিলিয়েট প্রোগ্রামে যুক্ত হয়ে যদি আপনি কোনো সমস্যার সম্মুখীন হোন কিংবা আপনার কোনো প্রশ্ন জিজ্ঞেস করার থাকে তবে আপনি তাদের সাপোর্ট ইনবক্সে সেটা জানিয়ে তাৎক্ষনিক সমাধান নিতে পারবেন।

বেটভিসা এফিলিয়েট প্রোগ্রামে যোগদানের শর্তাবলী

বেটভিসা বাংলাদেশ সাইটে এফিলিয়েট লিংক পাওয়ার জন্য আপনাকে কিছু সাধারণ শর্ত পূরণ করতে হবে। এফিলিয়েট প্রোগ্রামে যুক্ত হওয়ার পূর্বে তাদের ওয়েবসাইটের শর্তাবলী গুলো সম্পর্কে জেনে নিন।

১. বেটভিসা এফিলিয়েট প্রোগ্রামে যুক্ত হওয়ার ক্ষেত্রে আপনাকে একাধিক একাউন্ট তৈরি করা থেকে বিরত থাকতে হবে।

এক্ষেত্রে একাধিক একাউন্ট তৈরি করে স্প্যামিং করলে একাউন্ট ব্যান করা হবে।

২. এফিলিয়েট প্রোগ্রামে যুক্ত হওয়ার পূর্বে নিশ্চিত করতে হবে যে আপনি ১৮ বছর বয়সী কিংবা এর ঊর্ধ্বে। এর নিচে হলে আবেদন গৃহীত হবে না।

৩. এফিলিয়েট একাউন্ট তৈরির ক্ষেত্রে নিশ্চিত করুন যে আপনার দেওয়া সকল ডকুমেন্ট ও তথ্য সঠিক।

৪. এফিলিয়েট প্রোগ্রামের যেকোনো শর্তাবলী বেটভিসা কতৃপক্ষের দ্বারা সংশোধিত বা পরিবর্তিত হতে পারে।

বেটভিসা এটি পরিবর্তনের অধিকার রাখে এক্ষেত্রে সেটি অবশ্যই জানিয়ে দেওয়া হবে।

৫. বেটভিসা সাইটে এফিলিয়েট কমিশন পাওয়ার ক্ষেত্রে কোনো হিডেন চার্জ কাটা হবে না।

চুক্তিতে বা নীতিমালায় উল্লেখ নেই এমন চার্জ বা ফি কাটা হবে না।

এই কয়েকটি সাধারণ নিয়মনীতি অনুযায়ী আপনি এখানে এফিলিয়েট কমিশন আয় করতে পারবেন।

অত্যধিক আয় করার ক্ষেত্রে, একটি রেফারেল ওয়েবসাইট তৈরি করে সেখান থেকে ট্রাফিক জোগাড় করতে পারেন।

তাহলে আর দেরি কিসের, যুক্ত হোন এবং অতিরিক্ত আয় করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© Copyright 2023 Batvisa News